• বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৩ ১৪২৮

  • || ২৩ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আজ থেকে চলবে গণপরিবহন, মানতে হবে নির্দেশনা চাপ সামলে উঠছে অর্থনীতি, রেমিট্যান্স ও রিজার্ভে রেকর্ড ‘কৃষকের অ্যাপ’ দিয়ে ধান ক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন ‘স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ’ করতে সোহরাওয়ার্দীর গাছ কাটা হয়েছে’ পরিকল্পনা প্রণয়নে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কাজ শুরু

কাউন্সিল করারও সামর্থ্য নেই বিএনপির 

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২১  

রাজনীতিতে ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে বিএনপি। নির্দিষ্ট সময়ে কাউন্সিল করতেও ব্যর্থ হচ্ছে দলটি। মেয়াদের প্রায় দুই বছর পেরিয়ে গেলেও সপ্তম কাউন্সিল করতে পারেনি তারা।

জানা গেছে, বিএনপির ৩ বছর মেয়াদি কাউন্সিলের মেয়াদ অনেক আগেই শেষ হয়েছে। চলতি বছরের শুরুর দিকে দলের ভেতরে গুঞ্জন উঠেছিল আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সপ্তম কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু এ বছর আর কাউন্সিল হওয়ার সম্ভাবনা নেই। এ কাউন্সিল কবে হবে সেই বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানেন না দলের নীতিনির্ধারকরা।

সপ্তম জাতীয় কাউন্সিল নিয়ে কিছুদিন আগেও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছিলেন, শিগগিরই দলের সপ্তম কাউন্সিল করা হবে। কিন্তু দলের হাইকমান্ড এখন সেই অবস্থান থেকে সরে গেছে।

দলটির নীতিনির্ধারকরা বলছেন, কাউন্সিল করতে আরো কিছুদিন লাগবে। সার্বিক প্রস্তুতি নেই। ফলে আপাতত কাউন্সিল থেকে বিরত থাকার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সারাদেশে জেলা-উপজেলাসহ সর্বস্তরে কমিটি গঠনের কাজ শেষ হওয়ার পর কাউন্সিলরের চূড়ান্ত তালিকার কাজ সম্পন্ন হবে। অর্থাৎ দু’দিন আগে কিংবা পরেই হোক- সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়ার পরই ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হবে।

দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, বিএনপির ১৯ সদস্যের স্থায়ী কমিটিতে সক্রিয় আছেন মাত্র আটজন। স্থায়ী কমিটির তিনটি পদ শূন্য থাকার পাশাপাশি দলটির ভাইস চেয়ারম্যানের পদও বেশ কয়েকটি শূন্য। এছাড়া নির্বাহী কমিটিতেও কয়েকটি পদ শূন্য রয়েছে। কোনো কারণে বিএনপি কাউন্সিল করতে না পারলে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির শূন্য পদগুলো পূরণ করা অসম্ভব।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, এই মুহূর্তে চরম সংকটের মধ্য দিয়ে দিন পার করছে বিএনপি। অভ্যন্তরীণ কোন্দল আর নেতৃত্বের সংকটের কারণে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন দলের সর্বস্তরের নেতারা। যার ফলে বিএনপি এখন দিন দিন রাজনীতি শূন্য দলে পরিণত হয়েছে। এ অবস্থায় তাদের সাংগঠনিক ভিত্তি ভেঙে পড়েছে বললেই চলে। তাছাড়া দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকায় অর্থনৈতিকভাবেও সংকটের মুখে পড়েছে দলটি। যার ফলে এই মুহূর্তে কাউন্সিল করার মতো সামর্থ্য নেই দলটির।

উল্লেখ্য, বিএনপির সর্বপ্রথম কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর, দ্বিতীয়টি ’৮২ সালের ফেব্রুয়ারি, তৃতীয় ’৮৯ সালের মার্চ, চতুর্থ ’৯৩ সালের সেপ্টেম্বর, পঞ্চম ২০০৯ সালের ৮ ডিসেম্বর এবং সর্বশেষ ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল হয় ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –