ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ৩ হাজার ৪৭১ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৯৯৬ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫০৩ জন।
  • মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
শোক দিবসে দেশের সকল মসজিদে বিশেষ দোয়া ‘আধুনিক পদ্ধতি অনুসরণ করে শিশুদের পাঠদান করতে হবে’ লেবাননে পৌঁছেছে বাংলাদেশ সরকারের মানবিক সহায়তা ‘স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি রোধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার’ প্রণব মুখার্জির দ্রুত আরোগ্য কামনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর
১৪৯৩

কুমিল্লায় নতুন সম্ভাবনা কালো ধান

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০১৮  

বাংলাদেশে কালো জাতের ধান এখন পরীক্ষামূলকভাবে উৎপাদন হচ্ছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরে সহযোগিতায় কুমিল্লার কৃষক মঞ্জুর মিয়া কালো জাতের চাষ করছে।

মানব স্বাস্থের উপকারি এ ধান চাষ হলে কৃষকরা লাভবান হবেন বলছেন সংশ্লিষ্টরা। এতে নতুন সম্ভাবনা তৈরি হবে।

মঞ্জুর মিয়ার জমিতে চারটি কালো জাতের ধান রোপন করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে ব্ল্যাক রাইস ফিলিপাইন, ব্ল্যাক রাইস আসাম, ব্ল্যাক রাইস জাপান, ব্ল্যাক রাইস ইন্দোনেশিয়া।

পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক ড.মেহেদী মাসুদ জানান, কুমিল্লায় পরীক্ষামূলক কালো জাতের ধান দেশীয় ধানের চেয়ে সুগারের মাত্রা অর্ধেকের কম। এ জাতের ধানের চাল ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য উপকারী। দেশের আবহাওয়া উপযোগী তাই সঠিকভাবে উৎপাদন করলে কৃষকরা লাভবান হবেন।

প্রতি কেজি কালো জাতের ধানের চাল এক হাজার টাকা। এ ধান নিয়ে গবেষণা হচ্ছে। উৎপাদন খরচ কম হলে দেশব্যাপী উৎপাদন করা হবে। দামও কমবে।

মনাগ্রামে কৃষক মঞ্জুর মিয়া জানান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের সহযোগিতায় চারটি ভিন্ন কালো জাতের ধান উৎপাদনে সফল। চারটি ধানের মধ্যে বেগুনী পাতার কালো ধান, সবুজ পাতার কালো ধান আবার সবুজ খোসার কালো ধান রয়েছে। কালো জাতের ধান উৎপাদন এদেশে সম্ভব। সরকার কৃষকদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করলে কৃষকরা কালো জাতের ধান চাষ করতে পারে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর