ব্রেকিং:
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে টিকা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • শুক্রবার   ০৫ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪২৭

  • || ২১ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
আরো ৪ কোটি ডোজ টিকা কেনার চেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ পঞ্চম ধাপে ভাসানচরে পৌঁছেছেন আরো ১ হাজার ৭৫৯ রোহিঙ্গা সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্প: গাইবান্ধায় ঠিকানা পেল ৫০ সাঁওতাল পরিবার মার্কিন গণমাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নতির ভূয়সী প্রশংসা আত্মরক্ষায় মার্শাল আর্ট শিখছে তেঁতুলিয়ার কিশোরীরা

জম্মু-কাশ্মীর সফরে সন্তুষ্ট বিদেশি কূটনীতিকরা

প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

জম্মু-কাশ্মীর সফরের প্রথম দিন গত বুধবার সেখানকার সকল রাজনৈতিক দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে বিদেশি কূটনীতিবিদদের কথোপকথন হয়েছে। গত বছর অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন পরিষদের (ডিডিসি) নির্বাচনের ব্যাপারে শ্রীনগর  মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের মেয়র জুনাইদ মাট্টু বলেন, সার্বিকভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে।

জুনাইদ মাট্টুর বরাত দিয়ে সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার ক্ষমতায়নের সবচেয়ে বড় প্রমাণ হলো অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন।

প্রসঙ্গত, জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি এবং কেন্দ্রীয় সরকারের নেওয়া উদ্যোগ পর্যবেক্ষণের জন্য ইউরোপ ইউনিয়নের দেশগুলোসহ আরো বেশ কয়েকটি দেশের কূটনীতিবিদরা জম্মু-কাশ্মীরে দুই দিনের সফর করেছেন।

শ্রীনগরের মেয়র বলেন, বিদেশি কূটনীতিবিদদের স্থানীয় সংস্থা থেকে শুরু করে জেলা উন্নয়ন পরিষদের (ডিডিসি) ঐতিহাসিক নির্বাচন সম্পর্কে জানানো হয়েছে। সেখানকার বাস্তবতা জানতে চেয়েছিলেন আগত ব্যক্তিরা।

হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডাল লেকের তীরে শের-ই-কাশ্মীর ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে (স্কিসিসি) আলোচনা সভায় সকল দলের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি অংশ নেন।

মাট্টু এ ব্যাপারে বলেন, সেখানে মূল আলোচনার বিষয় ছিল- ক্ষমতা ও পরিকল্পনার বিকেন্দ্রীকরণ এবং তৃণমূলের প্রতিনিধিদের ক্ষমতায়ন।

তিনি আরো বলেন, আমি বিশ্বাস করি যে, তৃণমূল পর্যায়ে স্থানীয় প্রতিনিধিদের ক্ষমতায়ন এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

সরকারি কর্মকর্তারা জানান, বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, সেনেগাল ও তাজিকিস্তানের কূটনীতিবিদদের কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের মাগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিদেশি কূটনীতিবিদদের ওই দলে আরো ছিলেন ব্রাজিল, ইতালি, ফিনল্যান্ড, কিউবা, চিলি, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ড, বেলজিয়াম, স্পেন, সুইডেন, কিরগিজস্তান, আয়ারল্যান্ড, ঘানা, এস্তোনিয়া, বলিভিয়া, মালাউই, ইরিত্রিয়া ও আইভরি কোস্টের কূটনীতিবিদ।

শের-ই-কাশ্মীর ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে আলোচনা শেষে কথা বলতে গিয়ে দিল্লিতে নিযুক্ত বলিভিয়া দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হুয়ান হোসে কোর্টেজ রোজাস ভারত সরকারের প্রশংসা করে বলেন, আমরা বুঝতে পেরেছি- এখানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। এটা দারুণ ব্যাপার। 

তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের নেওয়া সিদ্ধান্তের জন্য এখানকার মানুষ ব্যাপক আনন্দিত।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধারা বাতিল করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এরপর জম্মু ও কাশ্মীরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করা হয়।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –