• বুধবার   ১২ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৭

  • || ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
২০১৯-২০ অর্থবছরে দেশে মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২০৬৪ ডলার করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনে প্রস্তুত দেশের চার কোম্পানি বন্যায় এ পর্যন্ত ১১,৭৫০ টন চাল বিতরণ করেছে সরকার দেশে ৩০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে চীনা প্রতিষ্ঠান ঐক্যফ্রন্টের ভূমিকায় বিভক্ত হয়ে পড়েছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা
১২

জলে-স্থলে সমান শক্তিশালী চীনের উভচর বিমান

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০২০  

নিজস্ব পদ্ধতিতে উদ্ভাবিত বিশ্বের সবচেয়ে বড় উভচর বিমানের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে চীন। স্থলে এবং গভীর সমুদ্রে বিমানটির পরীক্ষা চালানো হয়। দুটি পরীক্ষাই সফল হয়েছে বলে জানিয়েছে চীন।

চীনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এজি ৬০০ নামের অত্যাধুনিক এই সুবিশাল বিমানটি জটিল আবহাওয়াতেও উড়তে সক্ষম। খবর সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের।

চীনা সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, একেবারে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি বিমানটি জাংতুং প্রদেশের জিংতাওয়ে সমুদ্রের ওপর সফলভাবে উড়েছে। বিমানটি জিংতাওয়ের সমুদ্র থেকে সকাল ১০টা ১৮ মিনিট নাগাদ ওড়ে। সফলভাবে প্রায় ৩১ মিনিটের টেস্ট ফ্লাইট সম্পন্ন করে।

সরকারি বিমান নির্মাতা কোম্পানি অ্যাভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রি কর্পোরেশন অব চায়না (এভিক) জানিয়েছে, বিমানটি ভূমি থেকে ওড়ে ও ভূমিতে অবতরণ করে। পাশাপাশি সমুদ্র থেকেও বিমানটিকে ওড়ানো হয়। প্রায় ঘন্টাখানেক সেটি ওড়ার পর ফের সমুদ্রে অবতরণ করে।

এর আগে ২০১৭ সালে বিমানটি প্রথম আকাশে ওড়ে। ২০১৮ সালে একে একটি জলাশয় থেকে পরীক্ষামূলকভাবে আকাশে ওড়ানো হয়। এরপর সুবিশাল এই বিমানটিকে নিয়ে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হয়। এরপর সমুদ্র থেকে টেস্ট ফ্লাইট সম্পন্ন হওয়ার পর বিমানটিকে আরও বেশকিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

এজি ৬০০ চীনের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি বৃহৎ পরিসরের ‘বিমান পরিবারের’ সদস্য। দাবানল নেভানো, সমুদ্রে উদ্ধার-অভিযান চালানোর উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে এজি ৬০০ বিমানটি।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর