ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ৩৫২ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৬৬ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮৩ হাজার ৭৯৫ জন।
  • রোববার   ১২ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৮ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪১

৭৭

পঞ্চগড়ে সমাজসেবার অফিস সহকারীসহ ৪ জনের করোনা সনাক্ত   

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২০  

 পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের সমাজসেবা বিভাগের অফিস সহকারী, একটি বেসরকারি ব্যাংকের পিয়ন ও ঢাকা,গাজীপুর ফেরত ২ গার্মেন্টস কর্মী সহ  ৪ জনের দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯০ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে সদরে ২ জন ও আটোয়ারী উপজেলায় ২ জন। সোমবার রাতে  আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ফজলুর রহমান। 

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সূত্রে জানা যায়,আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলার আক্রান্ত ২ জনের মধ্যে একজনের বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের দলুয়া পাড়া গ্রামে। তার বয়স ৫৫ বছর। তিনি পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের সমাজসেবা বিভাগের অফিস সহকারী পদে চাকুরী করেন। তবে হাসপাতালের সমাজসেবা বিভাগকে লকডাউন করা হবেনা বরং সে যে রুমে কাজ করতো সেটি লকডাউন করা হয়েছে এমনটি জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ফজলুর রহমান। 

সদর উপজেলার আক্রান্ত অপর ব্যাক্তি ইসলামী ব্যাংক পঞ্চগড় শাখার পিয়ন পদে চাকুরী করেন। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামে এবং তার বয়স ২১ বছর। তিনি পঞ্চগড় পৌর এলাকার  কাঁচা বাজার আড়ৎ এর রাজা মার্কেট সংলগ্ন একটি মেসে ভাড়া থাকেন। 
তবে সে চট্টগ্রাম থেকে পঞ্চগড় আসার পর ব্যাংকের  শাখায় যোগদান না করায় ইসলামী ব্যাংক পঞ্চগড় শাখাটিকে লকডাউন করা হবেনা বলে জানিয়েছেন ব্যাংকটির ব্যবস্থাপক মোঃ সফিকুল ইসলাম।

আটোয়ারী উপজেলার আক্রান্ত ২ জনের মধ্যে একজনের বাড়ি তোড়েয়া ইউনিয়নের শুঁকাতি গ্রামে। সে গাজীপুরের একটি গার্মেন্টেসে চাকুরী  করে। গত ০২ জুন গাজীপুর থেকে নিজ গ্রামের বাড়িতে ফিরলে ০৫ জুন তার নমুনা সংগ্রহ করে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। 
আক্রান্ত আরেকজনের বাড়ি একই ইউনিয়নের পশ্চিম সাহা পাড়ায়। সে ঢাকা টঙ্গীর একটি টেক্সটাইল মিলে সুপারভাইজার পদে চাকুরী করে। গত ০২ জুন ঢাকা হতে নিজ গ্রামের বাড়িতে ফিরলে ০৪ জুন তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। 

গত ০৪ ও ০৫ জুন তাদের নমুনা সংগ্রহ করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানোর পর ০৮ জুন তাদের করোনা পজেটিভ এসেছে। বর্তমানে তারা নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন এবং তাদের করোনার উপসর্গ না থাকায় সুস্থ আছেন বলে জানা গেছে। 

সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ফজলুর রহমান জানান, এ পর্যন্ত ১৭৮৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করার পর ১৩৯৯ জনের রিপোর্ট এসেছে তার মধ্যে ৯০ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। জেলার ৯০ জন আক্রান্তের মধ্যে তেঁতুলিয়ায় ১১ জন,সদরে ২৭ জন,আটোয়ারীতে ৯ জন,বোদায় ৭ জন এবং দেবীগঞ্জে ৩৬ জন।  ইতিমধ্যে তেঁতুলিয়ায় ৪ জন,সদরে ৬ জন,বোদায় ২ জন এবং দেবীগঞ্জে ৩ জন সহ মোট ১৫ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এছারাও তেঁতুলিয়া উপজেলায় আজ দুপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে বেগম(৫০) নামে এক নারী মারা গেছেন। এর আগে আরো দুইজন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে বোদা উপজেলার একজন ও দেবীগঞ্জ উপজেলার একজন।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
পঞ্চগড় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর