ব্রেকিং:
স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশনা মেনে রংপুর জেলায় প্রায় ছয় হাজার মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করবেন মুসল্লিরা। ঈদের দিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মসজিদে মসজিদে এসব ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মহিউদ্দিন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ঈদের সকালে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ১০ মিনিটের ঝড়ের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে অর্ধশত ঘরবাড়ি। আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন। পবিত্র ঈদুল ফিতর আজ
  • মঙ্গলবার   ২৬ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৭

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
আজ মুসলিমদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। লালমনিরহাটে ঈদের সকালে ১০ মিনিটের ঝড়ে লন্ডভন্ড ঘরবাড়ি রংপুরে ছয় হাজার মসজিদে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত ঘরে বসে পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ উপভোগ করুন: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় কবি কাজী নজরুলের জন্মজয়ন্তী আজ
১৮২

পঞ্চগড়ে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের বাড়িতে পুলিশের উপহার   

প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০২০  

বিদেশফেরত হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের উৎসাহ জোগাতে এবং তাঁদের মনোবল ঠিক রাখতে তাদের বাড়িতে পুলিশের উপহার পৌছে দেয়া  হচ্ছে।

‘বাসায় থাকুন, সুস্থ থাকুন—কোয়ারেন্টিন মেনে চলার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ’ লাল ব্যাগের ওপর সাদা কাগজে এমন লেখাসংবলিত উপহারসামগ্রীর ব্যাগ নিয়ে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের বাড়িতে হাজির হচ্ছে পুলিশ। 


পুলিশ ও উপহার পাওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ব্যাগের ভেতর একটি সাবান, ডিটারজেন্ট পাউডারের একটি প্যাকেট, একটি টুথব্রাশ, একটি টুথপেস্ট, একটি হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং একটি টয়লেট টিস্যু পেপার রয়েছে।
এ ছাড়া হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা প্রায় ৭০০ জনকে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে মুঠোফোনে কল দিয়ে একাধিকবার খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

গত বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলীর নেতৃত্বে কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে উপহারসামগ্রী বিতরণের কার্যক্রম শুরু হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দিনভর চলে বিতরণ কার্যক্রম। বিকেল পর্যন্ত মোট দেড় শ ব্যক্তিকে এই উপহার পৌঁছানো হয়েছে। কোয়ারেন্টিনে থাকা সব ব্যক্তিকেই এই উপহার পৌঁছানো হবে বলে জানায় পুলিশ।


জেলা পুলিশ জানায়, ১ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত মোট ৯৭০ জন বিদেশ থেকে পঞ্চগড়ে এসেছেন। তাঁদের মধ্যে ৯০৪ জন ভারত থেকে এবং ৬৬ জন ইতালি, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, কাতার, সৌদি আরব, দুবাই, সুদান, দক্ষিণ কোরিয়া, নেদারল্যান্ডস, দক্ষিণ আফ্রিকা, গ্রিস, উগান্ডা ও চীন থেকে এসেছেন। বর্তমানে ৩৬৮ জন ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। বাকি ৬০২ জনের কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হয়েছে।
জেলা শহরের রাজনগর এলাকার বাসিন্দা আবদুল ওয়াদুদ মুঠোফোনে বলেন, ‘আমি সম্প্রতি ভারত থেকে দেশে ফিরেছি। হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আমাকে একাধিকবার ফোন করে খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আমি তো পুলিশের উপহার পেয়ে অবাক হয়েছি। কারণ ১৪ দিনের একাকিত্বে এমন উপহার পাওয়া সত্যিই অনেক আনন্দের।’

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, ‘একটা মানুষ ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পাশাপাশি তাঁর শারীরিক সমস্যা হচ্ছে কি না, এমন ভাবনা থেকে পুলিশের পক্ষ থেকে আমাদের এই সামান্য উদ্যোগ। আশা করি, এই উদ্যোগ কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের যথাযথভাবে কোয়ারেন্টিন পালনে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।’

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
পঞ্চগড় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর