ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩৬১ জনে। শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩৬১ জনে। শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।
  • শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৭

  • || ০৮ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
লালমনিরহাটে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে এসেছে জাতিসংঘের সদস্যপদ- প্রধানমন্ত্রী বিদেশে বিনিয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন রপ্তানিকারকরা দিনাজপুরে আরো ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত রংপুরে মৃদুলের বাড়িটি এখন ‘মাছের বাড়ি’
১৪০

পীরগাছায় শতভাগ ভাতা প্রাপ্তির আবেদন করেছে ২০ হাজার মানুষ 

প্রকাশিত: ১৭ আগস্ট ২০২০  

রংপুরের পীরগাছা উপজেলায় শতভাগ বয়স্ক, বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্ত নারীর জন্য সরকার কর্তৃক ভাতার জন্য আবেদন জমা পড়েছে ১৯,৯৬৫ জনের। এর মধ্যে ভাতা প্রাপ্তির যোগ্য বয়স্ক ব্যক্তির সংখ্যা ১২,৩৪৫ জন। অপরদিকে বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতা মহিলার সংখ্যা ৭,৬২০জন।

উপজেলা সমাজসেবা অফিস সূত্রে জানা যায়, পীরগাছা উপজেলায় ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ১নং কল্যাণী ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ৫৯৫ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৫০০ জন। ২নং পারুল ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১৬০০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ১০০০ জন। ৩নং ইটাকুমরাী ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১৩০০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৬০০ জন। ৪নং অন্নদানগর ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১২৫০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৮০০ জন। ৫নং ছাওলা ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১৬০০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৯০০ জন। ৬নং তাম্বুলপুর ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১৫৫০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৯০০ জন।

৭নং পীরগাছা সদর ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ২০৫০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ১১২০ জন। ৮নং কৈকুড়ী ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ১৫০০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ১১০০ জন। ০৯ নং কান্দি ইউনিয়ন থেকে বয়স্ক ভাতার আবেদন জমা পড়েছে ৯০০ ও বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতার ভাতার আবেদন ৭০০ জন।

এর আগে গত ৬ আগস্ট হতে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন জমা নেয়ার তারিখ নির্ধারণ ছিল। আবেদনে উল্লেখ ছিল প্রার্থীদের সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে, জাতীয় পরিচয় নাম্বার থাকতে হবে, বয়স পুরুষের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৬৫ বছর এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৬২ বছর হতে হবে, প্রার্থীর বার্ষিক গড় আয় ১০ হাজার টাকা হতে হবে।

যারা সরকারি কর্মচারী পেনশনভোগী, দুস্থ মহিলা হিসেবে ভিজিডি কার্ডধারী, অন্য কোনোভাবে নিয়মিত সরকারী অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত, কোনো বেসরকারি সংস্থা/সমাজকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান হতে নিয়মিতভাবে আর্থিক অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত হলে তারা ভাতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। বিধবা বা স্বামী পরিত্যক্ত ভাতার জন্য বিধবা হতে হবে, বয়স অবশ্যই ১৮ বছরের উপর হতে হবে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সরকার শতভাগ বয়স্ক-বিধবা ভাতার উদ্যোগ নেওয়ায় আমরা খুবই খুশি। যাদের বয়স হয়েছে তাঁরা সবাই এই ভাতার জন্য আবেদন করেছে। এছাড়া, বিধবারাও আবেদন করেছে। সরকারীভাবে যাচাই-বাছাই করে তালিকা প্রকাশ করা হবে। কাজটি খুব স্বচ্ছতার সাথেই হচ্ছে বলে জানান স্থানীয়র বাসিন্দারা।  

এ বিষয়ে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. এনামুল হক বলেন, বয়স্ক, বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্ত ভাতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে কোনো টাকা পয়সা লাগে না। কাউকে কোন টাকা দিবেন না। জমাকৃত আবেদন আমরা রংপুর জেলা সমাজসেবা দপ্তরে পাঠিয়েছি, যাচাই-বাছাই করে যোগ্য প্রার্থীকে ভাতার কার্ড প্রদান করা হবে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর