ব্রেকিং:
সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন শ্রেণিতে পরীক্ষা ছাড়াই অটো প্রমোশন (পাস) দেয়া হবে মর্মে প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। বিষয়টি ভিত্তিহীন ও গুজব বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
  • বৃহস্পতিবার   ০৯ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৫ ১৪২৭

  • || ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনা দুর্যোগ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে- প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশি নায়িকাকে কুপ্রস্তাব দিল ভারতীয় পরিচালক! এখনো বাতিল হয়নি এশিয়া কাপ- পিসিবি মাইক্রোসফট রিসার্চ ডেসার্টেশন গ্রান্ট পুরস্কার পেল দুই বাংলাদেশি করোনা শনাক্তে প্রতারণায় কঠোর অবস্থানে সরকার- কাদের

মাধ্যমিক শিক্ষা স্তরের উপবৃত্তির টাকা প্রাপ্তির জটিলতা অবসান হলো 

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২০  

মাধ্যমিক শিক্ষা স্তরের উপবৃত্তির টাকা প্রাপ্তির জটিলতা অবসান হলো। আজ বুধবার দেশের ৪৯২টি উপজেলার প্রায় ২৭ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৯ লাখ ৯২ হাজার ৭৮০ শিক্ষার্থী তাদের উপবৃত্তির অর্থ হাতে পেয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সরাসরি প্রত্যেক শিক্ষার্থীর নির্ধারিত মোবাইল এ্যাকাউন্টে পৌঁছেছে যাবে উপবৃত্তির টাকা। ফলে একসঙ্গেই জানুয়ারি মাস থেকে জুন পর্যন্ত ছয় মাসের বকেয়া টাকা পাচ্ছে উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, প্রতি অর্থবছরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে এক লাখ ৮৭ হাজার ৩৮৪ জনকে ১৮৭ কোটি টাকা বৃত্তি বাবদ দেয়া হয়। বৃত্তি পাওয়া অন্যান্য শিক্ষার্থীর বরাদ্দ করা টাকা পর্যায়ক্রমে অনলাইনে পাঠানো হবে। অনলাইনে বৃত্তি সেবাটি মুজিববর্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বুধবারই (আজ) শিক্ষার্থীদের মোবাইল নম্বরে তাদের উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে যাবে। এছাড়া ২০১৯ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী, জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৮৩ হাজার ৯৬৪ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১৭ কোটি ৩২ লাখ ৭৬ হাজার ৩৮৫ টাকা প্রদানের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রতি অর্থবছরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে এক লাখ ৮৭ হাজার ৩৮৪ জনকে ১৮৭ কোটি টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়। বৃত্তিপ্রাপ্ত অন্যান্য শিক্ষার্থীর বরাদ্দকৃত অর্থ পর্যায়ক্রমে অনলাইনে পাঠানো হবে বলেও জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

আজ দেশের ৪৯২টি উপজেলার প্রায় ২৭ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৯ লাখ ৯২ হাজার ৭৮০ শিক্ষার্থী তাদের উপবৃত্তির অর্থ হাতে পাচ্ছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সব বৃত্তির কার্যক্রম ডিজিটালাইজড করা হয়েছে। আগে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বৃত্তি দেয়া হতো। তাই শিক্ষার্থীদের টাকা পেতে অনেক ঝামেলা হতো। অনলাইনে বৃত্তি কার্যক্রম পরিচালনা করার ফলে জিটুপি পদ্ধতিতে বৃত্তির টাকা সরাসরি শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বরে পৌঁছে যাবে। ফলে শিক্ষার্থীরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের টাকা পেয়ে যাবে। এতে সরকারের সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে যে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে তার ফলস্বরূপ আমরা দ্রæততম সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের কাছে জিটুপি পদ্ধতিতে বৃত্তির অর্থ পৌঁছে দিতে পারছি। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সার্বিক পরামর্শ ও তত্ত¡াবধানে এক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী ও তার তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন মন্ত্রী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের জানিয়েছেন, মাধ্যমিক শিক্ষাস্তরের ১৯ লাখ ৯২ হাজার ৭৮০ শিক্ষার্থী তাদের উপবৃত্তির অর্থ হাতে পাচ্ছে বুধবার (আজ)। বাংলাদেশ ব্যাংকে টাকা পাঠানো হয়েছে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর