• বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৬ ১৪২৭

  • || ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সর্বশেষ:
গ্রামীণ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণসহ মজবুত করে তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর রংপুরে তিন ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে সাবেকরাই ফের নির্বাচিত নির্বাচনে ব্যর্থতার জন্য বিএনপি নেতাদের পদত্যাগ করা উচিত: কাদের হাতীবান্ধার দুই ইউপিতে নৌকা নিয়ে `বাবার চেয়ারে` বসলেন ছেলে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত সাক্ষাৎ করেও খালেদার গৃহবন্দির অভিযোগ!

মেক্সিকোর সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০২০  

মেক্সিকোর সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী সালভাদর সিয়েনফুয়েগোসকে যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রী মার্সেলো এবরার্ড টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, লস অ্যাঞ্জেলস বিমানবন্দর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হলেও তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এখনও প্রকাশ করা হয়নি।

এদিকে বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মাদক সংক্রান্ত দুর্নীতির তদন্তের অংশ হিসেবে তাকে গ্রেফতার করা হয়ে থাকতে পারে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

২০১২ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মেক্সিকোর প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন সালভাদর সিয়েনফুয়েগোস। পারিবারিক ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর লস অ্যাঞ্জেলস বিমানবন্দর থেকে তাকে গ্রেফতার করে মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

মেক্সিকোর অনুসন্ধানী ম্যাগাজিন প্রসেসকো যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের বেনামি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, মাদক পাচার চক্র সংশ্লিষ্ট একটি দুর্নীতির তদন্তের অংশ হিসেবে সালভাদর সিয়েনফুয়েগোসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মার্কিন সংবাদপত্র ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল মেক্সিকোর সরকারি সূত্রের বরাতে জানিয়েছে, মার্কিন মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের অনুরোধে সিয়েনফুয়েগোসকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে মার্কিন কর্তৃপক্ষ এখনও নিশ্চিত করে এই গ্রেফতারের বিষয়ে কিছু জানায়নি।

মেক্সিকোর সাবেক প্রেসিডেন্ট এনরিক পেনা নিয়েতোর অধীনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন ৭২ বছর বয়সী সালভাদর সিয়েনফুয়েগোস। দেশটির মাদক বিরোধী যুদ্ধে শক্তিশালী নিয়ামক ছিলেন তিনি। তবে ওই লড়াইয়ে যুক্ত দেশটির বেশ কয়েক জন শীর্ষ কর্মকর্তা ইতোমধ্যে দণ্ডিত হয়েছেন।

সালভাদর সিয়েনফুয়েগোস-এর অধীনে থাকা মেক্সিকো সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মাদক বিরোধী যুদ্ধের নামে মানবাধিকার হরণের অভিযোগ রয়েছে। তবে তার পূর্ববর্তী এবং পরবর্তী উত্তরাধিকারদের ক্ষেত্রেও এ অভিযোগ রয়েছে।

সিয়েনফুয়েগোস-এর বিরুদ্ধে সবচেয়ে ভয়াবহ অভিযোগ হলো ২০১৪ সালে একটি গুদামঘরে সন্দেহভাজনদের হত্যা। ওই বছরের জুন মাসে ২২ জন সন্দেহভাজনকে হত্যা করে দেশটির সেনাবাহিনী। পরে এক অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রায় আট সন্দেহভাজনকে আত্মসমর্পণের পর হত্যা করা হয়।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –