ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ৩ হাজার ২৬৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৬৫৪ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৪৬ হাজার ৬৭৪ জন।
  • বুধবার   ০৫ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২১ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ কামাল ছিলেন নির্লোভ, নির্মোহ- কাদের মুক্তি পেলো বঙ্গবন্ধুর উক্তি নিয়ে চলচ্চিত্র ‌‘চল যাই’ বন্যায় এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৪৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে করোনায় আরো একজনের মৃত্যু
২৩

রাতেই প্রকাশ হচ্ছে নিবন্ধন পেতে যাওয়া অনলাইন গণমাধ্যমের তালিকা   

প্রকাশিত: ৩০ জুলাই ২০২০  

প্রথম দফায় দেশের ৫০টি অনলাইন গণমাধ্যমকে নিবন্ধন দেয়া হবে। আজ রাতেই এসব অনলাইন গণমাধ্যমগুলোর নামের তালিকা প্রকাশ করা হবে। 
বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা অনেকগুলো অনলাইনের ব্যাপারে রিপোর্ট পেয়েছি। আপাতত ৫০টি অনলাইনের ব্যাপারে পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। সেগুলো আজকে রাতে ওয়েবসাইটে আপলোড করা হবে। তারা নির্দিষ্ট ফি জমা দিয়ে ঈদের পরে নিবন্ধন করে নিতে পারবে।

তিনি বলেন, অনেক অনলাইনের ব্যাপারে নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে, যাদের ব্যাপারে নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে তাদের জানিয়ে দেয়া হবে। আবার ওয়েবসাইটে অনেকগুলো প্রতিষ্ঠিত অনলাইনের নাম হয়তো দেখা যাবে না, তাদের ব্যাপারে রিপোর্ট নেগেটিভ তা নয়। এটি চলমান প্রক্রিয়া, যেহেতু তাদের ব্যাপারে আমরা এখনও রিপোর্ট পাইনি সেজন্য তাদের নামগুলো হয়তো আজকে আপলোড হবে না। প্রতিষ্ঠিত অনলাইনগুলোর ব্যাপারে রিপোর্ট এলে তারা সবাই নিবন্ধন করতে পারবেন বলেও জানান তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ তালিকা থেকে কারো নাম বাদ পড়লে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। কারণ, সাড়ে তিন হাজারের মধ্যে মাত্র ৫০টির নাম আজকে আপলোড হবে। আরো অনেকগুলো ধীরে ধীরে আপলোড হবে, এটি চলমান প্রক্রিয়া। এগুলো করতে কয়েকমাস সময় লাগবে।

মন্ত্রী বলেন, অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে যখন দেশ ডিজিটাল হয়েছে, তখন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা সাড়ে ১০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে। মানুষ ব্যাপকভাবে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইন পত্রিকাগুলো পড়ে। কিন্তু প্রায়শ দেখতে পাই, কারো কারো, সবার ক্ষেত্রে নয়; সবার আগে সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশন করার যে প্রতিযোগিতা সেটি করতে গিয়ে অনেক সময় ভুল সংবাদ পরিবেশিত হয়। 

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, একইসঙ্গে আমরা দেখেছি বিভিন্ন সময়ে কিছু অনলাইন পোর্টাল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে গুজব সন্ত্রাসী কাজে লিপ্ত হয়। অনেকের চরিত্র হনন এবং সাম্প্রদায়িক উস্কানি দেয়ার কাজে লিপ্ত হয়। যারা এগুলো করেছেন তাদের ব্যাপারে সেই ধরনের রিপোর্টই এসেছে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই রেজিস্ট্রেশনের কাজ করা হচ্ছে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –
ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর