• মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ ||

  • অগ্রহায়ণ ২০ ১৪৩০

  • || ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

সর্বশেষ:
বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বস্ত্রখাতের অবদান অপরিসীম: প্রধানমন্ত্রী পঞ্চগড়ে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস কুড়িগ্রামে কবর খুঁড়তেই বেরিয়ে এলো সাদা কাপড়ে মোড়ানো পুতুল-তাবিজ গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেফতার রংপুরে স্পিকার, বাণিজ্যমন্ত্রীসহ ১৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ

টিনেজারদের ত্বকের যত্নে

প্রকাশিত: ১৮ জুলাই ২০২৩  

টিনেজারদের ত্বকের যত্নে                                              
টিনেজারদের ত্বকের যত্ন নেওয়া বেশি জরুরি। কিন্তু অনেক কিশোরীরা জানেন না কিভাবে তা করা যায়। মূলত নিজের ত্বকের ধরন সম্পর্কে তাদের ভালো কোনো ধারণা না থাকায় এমন সমস্যা হয়। ফলে ভুলভাল পণ্য ব্যবহার করে ত্বকের ক্ষতি করে বসে।

এই সমস্যা থেকে উত্তরণের একমাত্র উপায় নিজের ত্বক সম্পর্কে জানা। সেইসঙ্গে বিভিন্ন ত্বকের ধরণ অনুযায়ী ত্বকের পরিচর্যায় বিষয়েও জানা উচিত। চলুন জেনে নেই ত্বকের ধরন অনুযায়ী পরিচর্যার উপায় কেমন হতে পারে: 

সাধারণ ত্বক
সাধারণ ত্বক সচরাচর মসৃণ এবং সমান হয়ে থাকে। স্মুথ স্কিন টোন যাকে বলে। ত্বকের রোমকূপগুলো এ ধরণের ত্বকে দেখা যায় না। সাধারণ ত্বকে লালচে ভাব কিংবা কোনো ধরণের কালো দাগ দেখা যায়না। বিশেষত এ ধরণের ত্বক একদম শুষ্ক কিংবা তেলতেলেও বলা চলে না। এই ধরণের ত্বকের পরিচর্যার জন্যে মাইল্ড ফেসওয়াশ কিংবা সাধারণ কোনো সাবান দিয়ে পরিষ্কার করুন। 

শুষ্ক ত্বক
শুষ্ক ত্বক সচরাচর রুক্ষ, খরখরে এবং নিষ্প্রভ হয়ে থাকে। শুষ্ক ত্বকের রোমকূপ প্রায় দেখাই যায় না। এ ধরণের ত্বকে প্রায়ই চুলকানি হয়৷ এই ধরণের ত্বকের পরিচর্যার জন্যে মাইল্ড ফেস-ওয়াশ ব্যবহার করা উচিত৷ প্রতিদিন ত্বক পরিষ্কার করা জরুরি৷ পারফিউম মুক্ত কিংবা এলকোহল মুক্ত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে৷ পারতপক্ষে গরম পানিতে গোসল করা এড়াবেন। তবে প্রচণ্ড গরম কিংবা শীতে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুলে আরাম পাওয়া যায়৷ মূলত ময়েশ্চারাইজার লক করে এমন প্রসাধনী ব্যবহার করা উচিত। 

তৈলাক্ত ত্বক
আপনার ত্বক উজ্জ্বল হলে, রোমকূপগুলো স্পষ্টভাবে দেখা গেলে, এবং প্রায়শই ব্ল্যাকহ্যাড কিংবা পিম্পল দেখা দিলে বুঝতে হবে আপনার ত্বক তৈলাক্ত। তৈলাক্ত ত্বকের পরিচর্যায় প্রতিদিন দুবার অথবা অন্তত একবার হলেও সাধারণ সাবান এবং পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। 

তেল সরাবার ক্ষেত্রে ক্লিনজিং প্যাড ব্যবহার করা উচিত। একনে কিংবা পিম্পল হলে কখনো টিপে গেলে ফেলবেন না। তাতে বরং ছড়ানোর সম্ভাবনা বাড়ে। প্রসাধনী ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সাবধান থাকবেন। 

কম্বিনেশন স্কিন
অনেকের ত্বক শুষ্ক এবং তেলতেলে দু ধরণেরই বৈশিষ্ট্য ধারণ করে। এ ধরণের ত্বক হয় খুব তেলতেলে বা শুষ্ক হয়ে থাকে। মূলত দিনে দুই থেকে তিনবার হালকা সাবান পানি দিয়ে পরিষ্কার করে নিন।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –