• রোববার ১৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

সদরঘাটের ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: নৌপ্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০২৪  

ঈদের দিন সদরঘাটে লঞ্চের রশি ছিঁড়ে পাঁচজন নিহত হওয়ার ঘটনায় যারা দোষী তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।  

প্রতিমন্ত্রী ঈদের পর আজ সোমবার সচিবালয়ে প্রথম কর্মদিবসে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা দোষী তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরই মধ্যে রুট পারমিট বাতিল করা হয়েছে। অভ্যন্তরীণ নৌপথে যতগুলো ঘটনা ঘটেছে, সেটা সদরঘাট হোক, ভোলায় হোক, চাঁদপুরে হোক, বরিশালে হোক, মাঝ নদীতেই হোক না কেন- প্রত্যেকটার বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। বিভিন্ন ধরনের শাস্তি দেওয়া হয় এতে।

তিনি বলেন, ঈদের দিন আমরা উৎসবমুখর মুডে ছিলাম। ‌সেখানে এই ধরনের একটি ঘটনা ঈদের আনন্দকে ম্লান করে দিয়েছে। আপনারা জানেন জাহাজের সঙ্গে যারা যুক্ত ছিল তাদের অনেকেই পালিয়ে গেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে।

এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। আমরা এই জায়গাটায় খুবই শক্ত আছি। যারা দোষী, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরইমধ্যে রুট পারমিট বাতিল করা হয়েছে।

সদরঘাটে লঞ্চের ভিড়ে জায়গা না থাকার পরও অনেক লঞ্চ গতি ও শক্তি নিয়ে সেখানে ঢোকার চেষ্টা করে। সারা বছরই এই প্র্যাক্টি‌সটা হয়। এটার বিষয়ে আপনারা দৃষ্টি দেবেন কী না- জানতে চাইলে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এটা সব লঞ্চ করে, ব্যাপারটা তা নয়। বিশেষ বিশেষ কিছু লঞ্চ করে, শক্তিশালী কোনো মালিক থাকলে তাহলে এটা করে। আমরা সেটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। মনে করেন এটার সঙ্গে মন্ত্রী-বাহাদুর যুক্ত আছে বা অন্য কেউ যুক্ত আছে, তখন অন্য লঞ্চের সঙ্গে স্টাফরা এই ধরনের আচরণ করে। এখান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

এ সময় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক নৌসংস্থার (আই এম ও) নির্বাচিত 'সি' ক্যাটাগরির সদস্য। ১৭৪টি দেশ আইএমও'র সদস্য। কীভাবে সমুদ্রপথ  নিরাপদ করা যায় সে লক্ষ্যে বাংলাদেশ একটি প্রস্তাবনা তৈরির কাজ করছে।

তি‌নি ব‌লেন, বাণিজ্যিক জাহাজগুলো যাতে বিভিন্ন ধরনের সংকটের সময়ে সমুদ্রপথে চলাচল করতে পারে সে লক্ষ্যে একটি প্রস্তাবনা তৈরির কাজ করছি। শিগগিরই সেটি আইএমও-তে পাঠানো হবে।

জিম্মি নাবিকদের উদ্ধারে নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য ছিল ২৩ জন নাবিককে নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনা। সেটা সম্ভব হয়েছে। এ বিষ‌য়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন অধিদফতর, আন্তর্জাতিক নৌ উইংগুলো কাজ করেছে। দ্রুত আমরা নাবিকদের মুক্ত করতে পেরেছি। এ ক্রেডিট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।
তি‌নি সব সময় এ বিষয়ে সজাগ ছিলেন। 

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –