• রোববার ১৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

কৃতি শিক্ষার্থীরাই স্মার্ট বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ: স্পিকার

প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০২৪  

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, জ্ঞানভিত্তিক, আধুনিক ও মানবিক মানুষ হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে হবে। কৃতি শিক্ষার্থীরাই স্মার্ট বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ।

মঙ্গলবার নিজ নির্বাচনী এলাকা ২৪ রংপুর-৬ এর অন্তর্গত পীরগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর মাহতাবিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে কুমেদপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও ইংলিশ কেয়ার আয়োজিত কুমেদপুর ইউনিয়নের কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

কুমেদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আবু ইসলাম লাবু, বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন রংপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান, পুলিশ সুপার মো. ফেরদৌস আলী চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকবাল হাসান।

স্পিকার বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রতিভা বিকাশে যথাযথ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। এদেশের ছেলেমেয়েরা স্বভাবতই মেধাবী। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রতিযোগিতায় আমাদের শিক্ষার্থীরা নিজেদের কৃতিত্বের প্রমাণ রাখছে।

তিনি বলেন, পীরগঞ্জের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে আদর্শ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের আগামীদিনের স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে। বিশ্বের বুকে অনন্য উচ্চতায় আমাদের দেশকে শিক্ষার্থীরা তুলে ধরবে। তিনি এ সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেন, নারী শিক্ষার আলো প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। পীরগঞ্জে বিভিন্ন বালিকা বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় নির্মাণসহ নারী শিক্ষার বিস্তারে অবকাঠামোগত প্রভূত উন্নয়ন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নারী শিক্ষার বিস্তারে আলাদা ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, শিক্ষা এখন আর নির্দিষ্ট স্তরের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, শিক্ষাকে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। বর্তমান সরকারের সময়ে আধুনিক ও গুণগত শিক্ষাক্রম প্রণয়নের মাধ্যমে সমসাময়িক বিশ্বব্যবস্থার সঙ্গে শিক্ষাকে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে তোলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দেশপ্রেমের চেতনায় উজ্জীবিত করতে শিক্ষার্থীদের জন্য মহান মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনের সঠিক ইতিহাস পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

স্পিকার বলেন, বিভিন্ন ইউনিয়নের অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজগুলোর দিকে নজর দেওয়া হয়েছে। মিঠিপুর ইউনিয়ন ও কাবিলপুর ইউনিয়নের রাস্তাঘাট নির্মাণ ও সুপেয় পানির সংকট নিরসনে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

এর আগে স্পিকার পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটক উদ্বোধন করেন। এ সময় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্পিকারকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

স্পিকার এ সময় মোট ৬৬জন কৃতি শিক্ষার্থীকে ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করেন এবং রসুলপুর উচ্চ বিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি ও শিক্ষকদের পক্ষ থেকে স্পিকারকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ এস এম তাজিমুল ইসলাম শামীম, রংপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান, পুলিশ সুপার মো. ফেরদৌস আলী চৌধুরী, পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন রাজা, পীরগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকবাল হাসান, উপজেলা প্রশাসনের সদস্য, স্থানীয় ও জেলাপর্যায়ের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা, বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –