• বৃহস্পতিবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৪ ১৪২৯

  • || ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
শেখ হাসিনার আজ জন্মদিন, জীবন যেন এক ফিনিক্স পাখির গল্প আজ থেকে করোনা টিকার বিশেষ ক্যাম্পেইন রংপুরে বাসের ধাক্কায় নিথর হলেন অটোযাত্রী ক্ষেতে কাজ করার সময় বজ্রপাত, প্রাণ গেল কৃষকের পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি, ৩ দিন বাড়ল তদন্ত প্রতিবেদন জমার মেয়াদ

পঞ্চগড়ের বোদায় দেখা করতে গিয়ে তরুণীর সম্ভ্রম লুট

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২  

পঞ্চগড়ের বোদায় দেখা করতে গিয়ে তরুণীর সম্ভ্রম লুট                       
মোবাইলে অপরিচিত নম্বরে পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে হয় প্রেম। টানা ৯ মাস ধরে চলে সম্পর্ক। এরই মধ্যে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে ৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নরসিংদী থেকে পঞ্চগড়ের বোদায় ছুটে আসেন ওই তরুণী। পরে রাতে উপজেলার প্রসাদ খাওয়া এলাকার এক আম বাগানে বিয়ের প্রলোভনে ওই তরুণীকে গণধর্ষণ করেন প্রেমিক ও তার বন্ধুরা। 

শনিবার রাতে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বোদা থানায় চারজনের নাম উল্লেখ করে ২-৩ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন। মামলার পর অভিযান চালিয়ে কথিত প্রেমিক আব্দুল মালেকসহ তার বন্ধু আলমগীর হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে পলাতক রয়েছেন আপন ও আশরাফুল।  

অভিযুক্তরা হলেন- প্রেমিক আব্দুল মালেক, আপন, আশরাফুল ইসলাম ও আলমগীর হোসেন। প্রেমিক আব্দুল মালিক উপজেলার সিপাইপাড়া এলাকার মহিদুলের ছেলে, আপন প্রসাদ খাওয়া এলাকার রাহুলের ছেলে, আশরাফুল ইসলাম একই এলাকার মকবুল হোসেনের ছেলে ও আলমগীর বামনপাড়ার গ্রামের সামসুদ্দিনের ছেলে।

জানা যায়, অপরিচিত নম্বরে পরিচয়ের মধ্য দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় আব্দুল মালেকের সঙ্গে। ৯ মাস ধরে চলা প্রেমের সম্পর্কে প্রেমিকের বিয়ের আশ্বাসে শুক্রবার সন্ধ্যায় নরসিংদী থেকে বোদায় ছুটে আসেন ওই তরুণী। পরে বন্ধু আলমগীরের সহযোগিতায় প্রেমিক তরুণীকে নিয়ে বোদার প্রসাদ খাওয়া এলাকায় একটি নির্জন বাড়িতে নিয়ে যায়। সে সময় আশরাফুল ও আপন নামে দুইজন সেখানে আসেন। বাড়িটিতে লোকজন না থাকায় তরুণীর বিষয়টি খটকা লাগে। সেখানে থাকতে রাজি না হলে, রাতেই কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ে করার আশ্বাস দেয় প্রেমিক মালেক। 

পরে ইজিবাইক চালক আলমগীর হোসেনসহ আরো ২-৩ জনকে পাহারায় রেখে মেয়েটিকে একটি আমবাগানে নিয়ে মালেক, আপন ও আশরাফুল পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। এ সময় মেয়েটি চিৎকারে স্থানীয়রা বাগানে টর্চলাইন জ্বালিয়ে এলে মেয়েটিকে রেখে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।

মঙ্গলবার সকালে বোদা থানার ওসি সুজয় কুমার রায় বলেন, প্রলোভনে পরে নরসিংদী থেকে ওই তরুণী পঞ্চগড় আসেন। পরে গণধর্ষণের শিকার হলে থানায় মামলা করেন। মামলার পর আমরা অভিযান চালিয়ে মালেক ও তার সহযোগী ইজিবাইক চালক আলমগীরকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারগারে পাঠিয়েছি। পরে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয় ওই তরুণীকে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –