• সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ঐতিহ্য ধরে রাখতে গরু-মহিষের গাড়িবহরে বিয়ে!

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২৪  

হর-হামেশায় শোনা যায় হেলিকপ্টার, মোটরযান কিংবা ঘোড়ায় চড়ে রাজকীয় বিয়ের কথা। এবার সেসব বিয়ের আলোচনা উপেক্ষা করে এক ভিন্ন বিয়ের আয়োজন দেখা গেছে উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে।

গত শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে গরু-মহিষের গাড়ি বহড়ে এক ব্যতিক্রম বিয়ের আয়োজন অনুষ্ঠিত হয় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায়। সেই গাড়িতেই চড়ে শ্বশুর বাড়িতে গেছেন কনে। বিগত দিনে রাজকীয় বিয়ে হিসেবে পূর্ব পুরুষরা এই গাড়িতে চড়ে বিয়ে করলেও কালের বিবর্তনে তা হারিয়ে যায়। বিলুপ্ত হওয়া সেই ঐতিহ্যকে আবারো তুলে ধরে মহিষের গাড়িতে বরযাত্রী নিয়ে কনের বাড়ি গেছেন বরপক্ষ। আধুনিকতার পরিবর্তে মহিষের গাড়িবহরে এক ভিন্ন মাত্রা যোগ হয় বলে জানান পরিবারের সদস্যরা।

তেঁতুলিয়া সদর ইউনিয়নের সাহেবজোত গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে শুভর সঙ্গে বিয়ে হয় একই গ্রামের ইউনুস আলীর মেয়ে ইসমিতা শারমিনের সঙ্গে। ছেলের বাবার ইচ্ছে ছিল ছেলের বিয়েতে গরু-মহিষের গাড়িতে বিয়ের আয়োজন করার। বাবার ইচ্ছে পূরণের পাশাপাশি পূর্ব-পুরুষদের এই ঐতিহ্য ধরে রাখতে পেরে খুশি নব এই দম্পতি।

শনিবার (৮ জুন) বিকেলে কথা হয় বর মাসুবুল হক শুভর সঙ্গে। তিনি বলেন, খুব ভালো লাগছে এমন আয়োজন। আমার বাবা-মার কাছে শুনেছি আমাদের পূর্ব পুরুষরা একসময় বিয়ের সময় গরু-মহিষের গাড়িতে বিয়ে করতে যেতেন। সেসময় গরু-মহিষের গাড়ির বিয়েকে রাজকীয় বিয়ে বলা হতো। কখনো এমন বিয়ে দেখিনে। আমার বাবার ইচ্ছে ছিল আমাকে গরু-মহিষের গাড়িতে চড়িয়ে বিয়ে করাবে। বাবার ইচ্ছে পূর্ব পুরুষদের পুরাতন ঐতিহ্য ধরে রাখতে এমন আয়োজন করার। তাই পারিবারিকভাবে বিয়ের আয়োজনে শুক্রবার বাহন হিসেবে মহিষের দুইটি গাড়ি নিয়ে বিয়ে করতে যাই। কনের বাড়ি আমাদের বাড়ি থেকে প্রায় ৪০০ গজ দূরত্ব থাকায় মহিষের গাড়িতে চড়ে কনের বাড়িতে বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। বেশ ভালো লেগেছে। এ প্রজন্মের ছেলে হয়ে পূর্ব পুরুষদের যুগে মহিষের গাড়িতে চড়ে বিয়ে করতে পারবো তা কল্পনাও ছিল না।

এদিকে কনে ইসমিতা শারমিন বলেন, এমন আয়োজন দেখে খুব ভালো লেগেছে। কোনোদিন ভাবিনি এমনভাবে নিজের বিয়ের আয়োজন হবে।

বরের বাবা নজরুল ইসলাম বলেন, আসলে আমি পেশায় বাসচালক। আমার পূর্ব পুরুষদের ঐতিহ্য ধারণ করতেই ছেলের বিয়েতে আধুনিক গাড়ির পরিবর্তে মহিষের গাড়ি ব্যবস্থা করেছি। সেই কথা চিন্তা করেই ঠিক করেছিলাম ছেলের বিয়ের দিনে মহিষের গাড়ি ঠিক করবো। সে চিন্তা থেকেই আমার এ আয়োজন। মহিষের গাড়িতে বিয়েতে যেতে পেরে অনেকে খুঁশি। সবাই ভালো সাপোর্ট করেছে।

মহিষের গাড়িতে চড়ে ভিন্ন এই বিয়ের আয়োজনের কিছু ছবি শনিবার দুপুরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায়। সাম্প্রতিক সময়ে গরু-মহিষের গাড়িতে বিয়ের এ আয়োজন না থাকায় এমন আয়োজন পুরনো দিনের ঐতিহ্য আবারো ফিরিয়ে আনবে বলে মনে করছেন সবাই।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –