• বৃহস্পতিবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৭ ১৪২৮

  • || ১৪ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জলবায়ু ইস্যুতে বিশ্বনেতাদের জোরালো পদক্ষেপ চান প্রধানমন্ত্রী লিঙ্গ সমতা নিশ্চিতে বিশ্বনেতাদের সামনে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব পীরগঞ্জে পর্নোগ্রাফির আলামতসহ ওয়ারেন্টভুক্ত ৮ আসামি গ্রেপ্তার লাশের পকেটে চিরকুট, ছিল মোবাইল নম্বর রংপুরে কিস্তির চাপে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

নবাবগঞ্জে স্কুলশিক্ষিকার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 

প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০২১  

দিনাজপুর নবাবগঞ্জ উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক স্কুল শিক্ষিকার অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে চলছে নানা রহস্য। হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন ও পাল্টাপাল্টি অভিযোগ। আর রহস্য জন্ম দিয়েছে মৃতের নিজ বাড়ির আঙিনার একটি বকুল গাছ নিয়ে। 

মৃত ওই স্কুল শিক্ষিকার নাম মোছা. জান্নাতুন আলিয়া। তিনি উপজেলার ২ নম্বর বিনোদনগর ইউনিয়নের রামপুর বাজার এলাকার মো. সোলায়মান মাস্টারের মেয়ে ও কলেজশিক্ষক এরশাদুল হকের স্ত্রী। বাবার গ্রামে নতুন বাড়ি বানিয়ে স্বামী নিয়ে থাকতেন ওই শিক্ষিকা। 

জানা যায়, স্ত্রী জান্নাতুন আলিয়া গত ৬ জুলাই নিজ বাড়ির আঙিনায় বকুল ফুলের গাছের ডালে রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন, এ মর্মে স্বামী এরশাদুল হক থানার জিডিতে উল্লেখ করেন। পরে মৃতের স্বামী সুলতান সালাউদ্দিন এরশাদুল হককে প্রধান আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচনার দায়ে মামলা দায়ের করেন মৃতের ভাই। 

মৃত শিক্ষিকার ভাই সালাউদ্দিন জানান, বোন আলিয়াকে ভোরে বকুল ফুলের গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখার বিষয়টি সম্পূর্ণ বানোয়াট। তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় কেউ দেখেননি। আঙিনায় থাকা বকুল গাছটিতে ঝুলার মতো কোনো ডালও ছিল না, যে ডাল ছিল তাতে ঝুলে পড়া তার একার পক্ষে সম্ভব না। এরশাদুল হক আসল ঘটনাকে আড়াল করতে এমন মিথ্যা তথ্য দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মৃত আলিয়ার প্রতিবেশী মো. রিপন বলেন, সেখানে গাছে ঝুলে পড়ার মতো আমরা কোন কিছু পাইনি। তা ছাড়া আলিয়ার মতো একজন মানুষ গড়ার কারিগর আত্মহত্যা করবে এটা অবিশ্বাস্য।

নবাবগঞ্জ থানার ওসি অশোক কুমার চৌহান জানান, বকুল গাছটিতে কীভাবে ঝুলতে পারে সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –