• শনিবার   ০২ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বিএনপি নেতারা সংসদে ইচ্ছামতো কথা বলেছেন: প্রধানমন্ত্রী ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু আরপিএমপির নতুন পুলিশ কমিশনার নূরে আলম মিনা ঠাকুরগাঁওয়ে বন্ধ হচ্ছে ট্রাক-ট্যাংকলরির টোল আদায় দিনাজপুরে কেজিতে ৩ থেকে ৪ টাকা কমল পেঁয়াজের দাম

বিএনপির অভ্যন্তরীণ ক্ষোভ এখন চক্রাকারে ঘুরছে

প্রকাশিত: ২১ মে ২০২২  

বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতারা ক্রমশ দ্বিতীয় সারির নেতাদের ক্ষোভের মুখে পড়ছেন। আর দ্বিতীয় সারির নেতারা স্থানীয় নেতাদের ক্ষোভের মুখে পড়ছেন। ফলে বিএনপির ক্ষোভ এখন চক্রাকারে ঘুরছে।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের মধ্যেই রয়েছে ক্ষোভ। সব ক্ষোভের কেন্দ্রবিন্দু যেন এক মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির দ্বিতীয় সারির একজন নেতা বলেন, আসলে আমরা নেতৃত্ব সংকটে ভুগছি। আমাদের জানা নেই কার কমান্ডে এগিয়ে যেতে হবে। আমি মনে করি, আগে সিনিয়রদের ঠিক হতে হবে। তাদের মধ্যেই যত ঝামেলা।

সম্প্রতি রাজধানীর গুলশানে দলের চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিএনপির এক বৈঠকে হঠাৎ রেগে যান জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় সাবেক চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক। সে সময় তিনি বিএনপির সিনিয়র নেতাদের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, আমরা কি এতই অসহায় হয়ে গিয়েছি যে, কোনো আন্দোলন সংগঠিত করার শক্তি পাচ্ছি না? আমাদের কি আসলেই অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাচ্ছে?

এ সময় মহাসচিবকে উদ্দেশ্য করে জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, আর সহ্য হচ্ছে না মহাসচিব মহোদয়। আমরা এখানে বসে বৈঠক করছি। তবে কৌশলে কোথাও ভুল করেছি কিনা দলের জন্য সেই বৈঠক করা দরকার।

জয়নুল আবদিন ফারুকের মতো খন্দকার আবু আশফাক, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, রুহুল আমিন দুলালসহ একঝাঁক বিএনপির নেতা এখন তেতে আছেন সিনিয়রদের প্রতি। তাদের একটাই কথা, দলটিকে তো ক্রমশ শেষ করে দেওয়া হচ্ছে। এর থেকে পরিত্রাণের উপায় হলো আন্দোলন। কিন্তু সিনিয়র নেতারা সেদিকে কেন যাচ্ছে না, তা তাদের বোধগম্য নয়।

এদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, এক যুগের বেশি সময় ধরে কোণঠাসা অবস্থায় রয়েছে বিএনপি। দলীয় কোন্দল, গঠনতন্ত্রে সমন্বয়হীনতা এবং দলের জুনিয়র নেতাদের অবমূল্যায়নের কারণেই দলটি বিপর্যস্ত অবস্থায় পড়েছে। এ থেকে পরিত্রাণের উপায় আপাতত নেই বললেই চলে।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –