• বৃহস্পতিবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৭ ১৪২৮

  • || ১৪ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জলবায়ু ইস্যুতে বিশ্বনেতাদের জোরালো পদক্ষেপ চান প্রধানমন্ত্রী লিঙ্গ সমতা নিশ্চিতে বিশ্বনেতাদের সামনে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব পীরগঞ্জে পর্নোগ্রাফির আলামতসহ ওয়ারেন্টভুক্ত ৮ আসামি গ্রেপ্তার লাশের পকেটে চিরকুট, ছিল মোবাইল নম্বর রংপুরে কিস্তির চাপে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

উলিপুরে বিয়ের পরদিন প্রেমিকের হাত ধরে নববধূর পলায়ন

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০২১  

ধুমধাম করে বিয়ের খাওয়া-দাওয়ার পরদিন বেরসিক নববধূ পালিয়ে গেল প্রেমিক প্রবরের হাত ধরে। চতুর প্রেমিক নববধূকে কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌর শহর থেকে পঞ্চগড় জেলার বোদা থানায় এক পরিচিতের বাড়ীতে তুলে নিয়ে চালিয়েছে একাধিকবার অভিসার। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন নববধূকে উদ্ধার করতে পঞ্চগড় গেলে প্রেমিক সামিউল ইসলাম (৩০) নববধূকে ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নববধূর মা বুধবার (২৮ জুলাই) তার মেয়েকে আটকে রেখে জোড়পূর্বক ধর্ষণ মামলা করেছে প্রেমিক সামিউল ইসলাম’র বিরুদ্ধে।

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার বেলগাছা ইউনিয়নের অধিবাসী ওই নববধূর পরিবারের বাড়ীর পাশের গ্রামে সামিউল ইসলামের বাড়ী। সে ওই গ্রামের ছমির উদ্দিনের পূত্র। গত দেড় বছর ধরে নববধূটির সাথে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে সে। মেয়েটি প্রথমে তাকে এড়িয়ে চললেও গত ৬মাস ধরে তাদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরী হয়। মেয়ের পরিবার ঘটনা জানতে পেরে বিষয়টি সামিউলের পরিবারকে জানায়। এতে ক্ষিপ্ত আমিনুল মেয়েকে অপহরণের হুমকী দেয়। ফলে মেয়ের পরিবার ভীত হয়ে গত ২১ জুলাই উলিপুর পৌর শহরে এক যুবকের সাথে তার বিয়ে দেয়। এরপর ২২ জুলাই সামিউল নববধূকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শশুর বাড়ীর পিছনে তার সাথে দেখা করতে বলে। এরপর মেয়েটি দেখা করতে এলে তাকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যায় সামিউল। এ ঘটনায় নববধূর স্বামী সকালে উঠে স্ত্রীকে না পেয়ে শ^শুর বাড়ীর লোকজনকে খবর দেয়।

মেয়ের পরিবার অনেক খোঁজাখুঁজির পর পঞ্চগড় জেলার বোদা থানার কাজলদীঘি এলাকায় নববধূ ও প্রেমিক সামিউলের অবস্থান সনাক্ত করে। এরপর পরিবারের লোকজন মেয়েকে উদ্ধার করতে গেলে প্রেমিক সামিউল নববধূকে একা ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। মেয়েটি জানায় সামিউল বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোড়পূর্বক তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। এ ঘটনায় ওই নববধূর মা বাদী হয়ে বুধবার (২৮ জুলাই) উলিপুর থানায় অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযোগে সামিউল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-২৫)।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মো. রুহুল আমীন জানান, এ ব্যাপারে নববধূকে অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। 
 

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –