• সোমবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৪ ১৪২৮

  • || ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
ছাত্রলীগকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে পথে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গেমিং অ্যাপ ‘আমার বঙ্গবন্ধু’ জঙ্গিবাদ নির্মূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির ইসি গঠনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রাষ্ট্রপতির সংলাপে যাচ্ছে আ.লীগ ৬৭ হাজার ভোটের ব্যবধানে ফের মেয়র আইভী

সৈয়দপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় মেম্বার প্রার্থীসহ দুইজন হাসপাতালে

প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২১  

গভীর রাতে ভোট কিনতে টাকা বিতরণের সময় বাধা দেওয়ায় মেম্বার প্রার্থীর ওপর সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষ প্রার্থীসহ তার লোকজন। এতে গুরুতর আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থী নুরন নবী সরকারসহ দুইজন।

শুক্রবার (২৫ ডিসেম্বর) দিবগত রাত আড়াইটার দিকে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড গুয়াবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।  

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নুরন নবী সরকার বলেন, গতরাত প্রায় ২টার সময় খবর পাই সাতপাই গুয়াবাড়ি এলাকায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সেকেন্দার আলী তার লোকজনসহ বাড়ি বাড়ি গিয়ে টাকা দিয়ে ভোট কিনছে। তাৎক্ষণিক সত্যতা জানতে সঙ্গীয় দুইজনকে নিয়ে ওই এলাকায় যাই। পৌঁছতেই দেখি সেকেন্দার আলী, তার বড় ভাই মৃত অলি উদ্দিনের ছেলে আশিকুর, হাসিনুর, ধনদ্দি মামুদের ছেলে মফেজুল, খায়রুলের ছেলে আবুল হোসেন ও আতিয়ার যারা ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার এবং পার্শবর্তী বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের মৃত সালেহ মামুদের ছেলে এনামুল হকসহ আরও পাঁচজন রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রকাশ্যেই টাকা বিতরণ করছে।  

আমরা সংখ্যায় কম হওয়ায় প্রত্যক্ষ প্রতিরোধ না করে বিষয়টা প্রশাসনকে জানাতে তাদের এড়িয়ে সামনে একটু দূরে এগিয়ে যাই। রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ইউএনওকে মোবাইল করতে যাবো এমন সময় পেছন থেকে সেকেন্দারসহ ৯-১০ জন এসে অতর্কিত হামলা চালায়। তারা রড, বাঁশ ও কাঠের লাঠিসোঁটা সহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমাদের এলোপাথাড়ি মারডাং করাকালেই বিপরীত দিক থেকে ৫-৬টি মোটরসাইকেলে আরও প্রায় ১৫-২০ জন এসে তাদের সঙ্গে মারধরে যোগ দেয়। প্রতিবারের মতো এবারও ভোটারদের ভয়ভীতি দেখিয়ে নিজের পক্ষে টানতে না পেরে টাকা দিয়ে ভোট কিনতে গভীর রাতে মাঠে নেমেছে। অবৈধ একাজ দেখে ফেলায় পরাজয় নিশ্চিত জেনে এমন নৃশংসতায় জড়িয়েছে। সংঘবদ্ধ অতর্কিত আক্রমণে ব্যাপক জখম হই। তাদের হাত থেকে পালিয়ে পাশে এক বাড়িতে আশ্রয় নিলে প্রাণে বেঁচেছি। পরে মৃতপ্রায় অবস্থায় লোকজন উদ্ধার করে রাত সাড়ে ৪টায় হাসপাতালে নিয়ে আসে।  

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতর্কা (ওসি) আবুল হাসনাত খান জানান, বিষয়টি শুনেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। লিখিত পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 
এদিকে, ভোটের আগের রাতে এমন সহিংসতার ঘটনায় এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। ভোট সুষ্ঠু হওয়া নিয়ে আশংকা প্রকাশ করেছেন ভোটারসহ এলাকাবাসী।

– দৈনিক পঞ্চগড় নিউজ ডেস্ক –